তরুণ ভোটারদের নিয়ে যা বললেন মোস্তফা জামান আব্বাসী

কিংবদন্তি ভাওয়াইয়া সম্রাট আব্বাসউদ্দীন আহমদের পুত্র মুস্তাফা জামান আব্বাসী একাধারে একজন শিল্পী, গায়ক, উপস্থাপক, গবেষক, সাহিত্যিক, অনুবাদক ও চিন্তক। তবে আমাদের কাছে তিনি অধিক পরিচিত একজন সঙ্গীতজ্ঞ হিসেবে। বিশেষত লোকগানে তার সুর ও কণ্ঠ হাজারো ভক্তের হৃদয় ছুঁয়ে যায়।

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে নানা ভাবে আলোচনা হচ্ছে তরুণ ভোটারদের নিয়ে। সে বিষয়ে কথা বলেছেন এই প্রবীন কন্ঠ শিল্পীও। আজকের তার ফেসবুক প্রোফাইলে দেয়া এক পোস্টে তিনি বলেন, “আজকের খবরের কাগজের হেড লাইন: গুরুত্বে তরুণ ভোটার। এবার নতুন ভোটার ১১.১৮%। এই কথাটাই আমি গত পঞ্চাশ বছর ধরে বলে আসছি।”

আরও পড়ুনঃ মিস ওয়ার্ল্ডের ‘ফাইনাল থার্টি’তে বাংলাদেশের ঐশী

তিনি এরপর বলেন, “পাঠশালায়, প্রাইমারি স্কুলে, হাই স্কুলে, কলেজে, বিশ্ববিদ্যালয়ে আমাদের শিক্ষার প্রধান ব্যক্তিকে আমরা চিহ্নিত করতে পারি নি। আজও নয়। তাই তার শিক্ষা থেকে বহু দূরে। সামনা সামনি মনে হয় এগিয়েছি, কিন্তু তা নয়। আমরা মানব জীবনের প্রথম লক্ষ্য থেকেই হয়েছি বিচ্যুত।”

আব্বাসী এরপর আরও লিখেছেনঃ

“মফঃস্বল থেকে একটি ছেলে এসেছে আমার কাছে। জানতে এসেছে একটি ছোট্ট কথা। সে কিভাবে রসুল [সা]- কে ভালবাসবে, কিভাবে তার আদর্শকে জীবনে প্রতিষ্ঠিত করবে, কিভাব রসুল [সা]-এর ভালবাসা পাবে? ছেলেটিকে স্পর্শ করে যেন আমি এক অপার্থিব আনন্দ অনুভব করলাম। এরাই আমার তরুণ, এরাই আমার ভবিষ্যৎ, এরাই আমার রসুল [সা]-এর পতাকাবাহী, এরাই দেশের নতুন সন্তান।

আমি বললাম:

১. প্রথমে তাঁকে অনুভবে আনবে। যাকে ভালবাসা যায়, তাকে যেমন আমরা মানবিক জীবনে সর্ব মুহুর্তে মনে করার চেষ্টা করি, তেমনি তোমার জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে রসুল [সা]- কে সামনে আনবে।

২. সব সময় সত্য কথা বলবে, সত্য পথে চলবে, বাবা-মাকে মানবে।

৩. রসুল [সা]- কে নিয়ে লেখা একটি দু’টি বই সংগ্রহ করবে। তাঁর জীবনকে জানবে। এগুলো স্কুলে, কলেজে কোথাও পাবে না। ওরা চায় না আমরা রসুল [সা]- কে চিনি। তাই ইচ্ছে করে এগুলোকে বাদ দিয়েছে। এগুলো আমাদের প্রভু ব্রিটিশদের কারসাজি। এর পর যারা আল্লাহ্‌ মানে না, তাদের কারসাজি। এই কারসাজি দিন দিন এগিয়ে চলেছে। ওদেরকে প্রতিহত করতে হবে। কারণ ওরা শয়তানের অনুগামী।

৪.প্রশংসা বাক্য আমাদের ক্ষতি করে। অতিরিক্ত প্রশংসা শুনবে না। করবে না।

৫. কুরআনে যা বলা হয়েছে সেটিই শেষ কথা। নামাজ পড়বে, যেন আল্লাহ্‌ সামনে উপস্থিত। মস্‌জিদ চিনবে। মুসলমানদের আকিদা চিনবে। খ্রিষ্টান, ইহুদিদের অনুসরণ করবে না। তাদেরকে জীবনের আদর্শ মনে করার কোন কারণ ঘটে নি।

৬. নিজকে এমন করে গড়ে তুলবে যাতে মনে হয় তুমি সারাক্ষণ রসুল [সা]- কে অনুসরণ করছ।

ছেলেটি কিশোর, হয়ত আমার গান ভালবাসে। হয়ত লেখাও। তাই আমাকে কথাগুলো জিজ্ঞেস করার জন্যে সুদূর সাগরদাড়ি গ্রাম থেকে চলে এসেছে। অনেকেই আমাকে ফোন করে। আমি ওদেরকে উপদেশ দি’। আবার নিজকেই তা ফিরিয়ে দি’। যেন আমি প্রতিক্ষণে, প্রতি নিঃশ্বাসে রসুল [সা]-এর অনুগামী হই। হে আল্লাহ্‌! আমাকে অন্য পথে ফিরিয়ে নিও না।”

Leave A Reply

Your email address will not be published.