মোদিকে ধরতে নাছোড়বান্দা রাহুল

রাফাল ইস্যুতে ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে ধরতে যেন নাছোড়বান্দা বিরোধী দল কংগ্রেসের সভাপতি রাহুল গান্ধী। প্রায় প্রতিদিনই সংবাদ সম্মেলন করে তিনি দাবি করছেন, রাফাল যুদ্ধবিমান কেনাবেচার চুক্তিতে বড় ধরনের দুর্নীতি হয়েছে। প্রমাণ করার চেষ্টা করছেন চৌকিদারই (মোদি) চোর।

আর এটি প্রমাণে এবার তার হাতিয়ার একটি ই-মেইল। বিমান সংস্থা এয়ারবাসের এক কর্মীর করা ই-মেইলের অংশ তুলে ধরে কংগ্রেস সভাপতি দাবি করেছেন, রাফালে চুক্তি হওয়ার দশ দিন আগেই জানতেন দেশটির শীর্ষ ব্যবসায়ী অনিল আম্বানি। অথচ চুক্তি সম্পর্কে প্রতিরক্ষামন্ত্রী তথা প্রতিরক্ষা সচিব পর্যন্ত জানতেন না।

 

আর সেখানেই রাহুলের জোরালো প্রশ্ন, প্রতিরক্ষামন্ত্রী না জানলে চুক্তি সম্পর্কে অনিল আম্বানি কী করে জানলেন?

কংগ্রেস সভাপতির দাবি, আম্বানিকে চুক্তি সম্পর্কে আগে থেকে জানিয়ে দিয়ে প্রধানমন্ত্রী জাতীয় নিরাপত্তার সঙ্গে সমঝোতা করেছেন। মোদি যেটা করেছেন সেটা গুপ্তচরেরা করে থাকেন।

 

মঙ্গলবার সংবাদ প্রতিদিনের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এদিন সংবাদ সম্মেলনে একটি ই-মেইলের প্রিন্ট আউট তুলে ধরেন রাহুল। ই-মেইলটি ২০১৫ সালের ১৮ মার্চের। এতে এয়ারবাসের ওই কর্মকর্তা লিখেছেন, ‘খবর পেলাম ফ্রান্সের প্রতিরক্ষা মন্ত্রীর সঙ্গে গোপন সাক্ষাৎ করেছেন অনিল আম্বানি। ফ্রান্সের সঙ্গে বাণিজ্যিক এবং প্রতিরক্ষা বিমান নির্মাণে সংক্রান্ত শিল্পে কাজ করতে ইচ্ছুক তিনি। খুব শিগগির ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ফ্রান্স সফরে আসবেন। তখন দুই দেশের মধ্যে সেই সংক্রান্ত একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হবে বলে আম্বানি দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে জানিয়েছেন। তার প্রস্তুতিও শুরু হয়ে গেছে।’

 

রাহুলের অভিযোগ, প্রধানমন্ত্রীর সফরের ঠিক দশ দিন আগে গোপনে ফ্রান্সে যান অনিল আম্বানি। দেখা করেন সেদেশর সেসময়ের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে। তাকে জানিয়ে আসেন, ভারত ও ফ্রান্সের মধ্যে রাফালে চুক্তি হয়ে গেলে তিনি ফ্রান্সের সঙ্গে প্রতিরক্ষাক্ষেত্রে কাজ করবেন। অর্থাৎ সরকারি আমলাদের আগে আম্বানি চুক্তির খবর জানতেন। প্রধানমন্ত্রী তাকে খবর দিয়েছিলেন। যা দালালির শামিল।

 

Leave A Reply

Your email address will not be published.