আদালতের ‘তদন্ত ডায়েরি’ উইপোকা খেয়ে ফেলছে!

ঢাকার মুখ্য বিচারিক হাকিম (সিজেএম) আদালতের প্রায় দুই হাজার তদন্ত ডায়েরি (কেস ডকেট) উইপোকায় খেয়ে নষ্ট করে ফেলেছে। আর এতে গুরুত্বপূর্ণ মামলার সাক্ষীরা সাক্ষ্য দিতে এসে বিপাকে পড়েছেন। মামলার সাক্ষীরা সাক্ষ্য দিতে না পারায় মামলায় ভয়ানক ও প্রকৃত অপরাধীরা খালাস পেয়ে যাওয়ার আশঙ্কা করছেন আইনজীবীরা। এনটিভি।

ঢাকার মুখ্য বিচারিক হাকিমের একটি কক্ষে দীর্ঘদিন ধরে পড়ে থাকা প্রায় দুই হাজার কেস ডকেট নষ্ট অবস্থায় দেখা গেছে। নষ্ট হওয়া কাগজগুলোর মধ্যে রাষ্ট্রদ্রোহ, প্রতারণা, চুরি, মাদক, নাশকতা, পেট্রোলবোমা হামলাসহ একাধিক মামলার সিডি (কেস ডকেট) রয়েছে।

 

মুখ্য বিচারিক হাকিম আদালতের আইনজীবী আবুল কালাম আজাদ জানান, যেকোনো মামলার প্রাণ হলো কেস ডকেট। ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা করতে হলে সাক্ষীদের সাক্ষ্য জরুরি। কেননা, একজন বিচারক মামলার বিচার করার সময় সাক্ষীদের জবানবন্দি আর জেরা পর্যালোচনা করেন। কিন্তু মুখ্য বিচারিক হাকিম আদালতে এভাবে কেস ডকেট (সিডি) নষ্ট হওয়া খুবই হতাশাজনক। মামলার তদন্ত কর্মকর্তাসহ অন্যদের সাক্ষী দিতে কেস ডকেটের প্রয়োজন। রাষ্ট্রপক্ষ কেস ডকেট ছাড়া মামলার সাক্ষীদের কোনো সহায়তা করতে পারবেন না। আর এতে প্রকৃত অপরাধীরা খালাস পেয়ে যাবেন।

 

আইনজীবী আরো বলেন, পুলিশের উচিত ছিলো এসব কেস ডকেট আদালতের সরকারি কৌঁসুলিদের দিয়ে দেয়া। কিন্তু নিজেদের কাছে এগুলো অবহেলা অবস্থায় রেখে রাষ্ট্রের ও বিচার বিভাগের অনেক ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি করেন তিনি।

এ বিষয়ে আদালতের কোর্ট পরিদর্শক আসাদুজ্জামান বলেন, এমন ধরনের তথ্য আমার কাছে নেই। নষ্ট হলেও দু-একটি নষ্ট হতে পারে। আর কেস ডকেট রাখার দায়িত্ব হলো পিপিদের কাছে। এ ক্ষেত্রে পুলিশের কোনো ধরনের ভূমিকা নেই বলে জানান তিনি।

 

Leave A Reply

Your email address will not be published.