যুদ্ধের প্রস্তুতি শুরু পাকিস্তানে, হাসপাতালগুলিকে তৈরি থাকার নির্দেশ

পুলওয়ামাকাণ্ডে ভারতের পদক্ষেপের ভয়ে ইতিমধ্যেই পাকিস্তান যুদ্ধের প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে বলে জানা যাচ্ছে৷ টাইমস অব ইন্ডিয়ায় প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, পাকিস্তান তার বিভিন্ন স্থানে এই প্রস্তুতি নিচ্ছে৷ এগুলির মধ্যে একটি বালোচিস্তানের মিলিটারি বেস৷ এদিকে পাক অধিকৃত কাশ্মীরের স্থানীয় প্রশাসনকে একটি নোটিশ পাঠানো হয়, যার থেকে জানা যাচ্ছে, ভারতের সঙ্গ যুদ্ধের প্রস্তুতি তারা শুরু করে দিয়েছে৷ এ খবর দিয়েছে কলকাতা২৪।

 

কোয়েটা ক্যান্টনমেন্ট স্থিত পাক সেনার বেস হেডকোয়ার্টাস কোটা লজিস্টিকস এরিয়ার পক্ষ থেকে ২০ফেব্রুয়ারি জিলানি হাসপাতালে একটি চিঠি পাঠানো হয়, যেখানে ভারতের সঙ্গে সম্ভাব্য যুদ্ধের কথা মাথায় রেখে চিকিৎসা সংক্রান্ত বন্দবস্তের কথা বলা হয়েছে৷

পাক সেনার বেস হেডকোয়ার্টাস কোটা লজিস্টিকস-র ফোর্স কমান্ডার এশিয়া নাজের পক্ষ থেকে জিসানি হাসপাতালের আবদুল মালিককে চিঠিতে লেখা হয়, ‘… যুদ্ধের পরিস্থিতিতে সিন্ধ এবং পঞ্জাবের সিভিল বা মিলিটারি হাসপাতালে আহত সেনাদের নিয়ে আসা হতে পারে।’ শুধু তাই নয়, ২৫ শতাংশ বেড সংরক্ষিত রাখার নির্দেশের পাশাপাশি জরুরি সুযোগ সুবিধার ব্যবস্থাও নিতে বলা হয়েছে৷

 

এদিকে, পুলওযামাকাণ্ডে একঘরে পড়ে গতকালই পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান পাক সেনাকে স্পষ্ট জানালেন, ভারত কোনও পদক্ষেপ নিলে তার প্রত্যুত্তর দেবে পাক সেনা৷ বৃহস্পতিবার ইমরানের নেতৃত্বে জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠক হয়৷ সেখানে উপস্থিত ছিলেন দেশের সামরিক বিভাগের শীর্ষ আধিকারিকরা, তারা জানায়, পাকিস্তানকে রক্ষা করতে সক্ষম পাক সরকার৷

সূত্রের খবর, সেনাকে জবাব দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন পাক প্রধানমন্ত্রী৷ ভারতের দিকে থেকে কোনও পদক্ষেপ নেওয়া হলে পাক সেনা যেন তার জবাব দেয় জানিয়েছেন ইমরান খান৷ সেই সঙ্গে এও জানান, পুলওয়ামা হামলার ছক জম্মু-কাশ্মীরেই হয়েছিল৷ প্রসঙ্গত, গত ১৪ ফেব্রুয়ারি পুলওয়ামাতে জঙ্গি হামলায় শহিদ হন ৪০ সিআরপিএফ জওয়ান৷ আর এই ভয়াবহ হামলায় কড়া জবাব দিতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এক জনসভায় সেনাদের জবাব নেওয়ার পূর্ণ স্বাধীনতা দেন বলে জানা যায়৷

 

Leave A Reply

Your email address will not be published.